সোমবার সন্ধ্যা ৭:১৭, ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ ইং
প্রতিবেদন
ক‌রোনায় ১৭ জন সাংস‌দের মৃত্যু: দ্বিতীয় ঢেউয়ে আ‌রো শতাধিক আক্রান্ত পুরো ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর এখন ডাস্টবিন হরতালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সরকারী গণগ্রন্থাগার ধ্বংস (ভিডিও) মোদীবিরোধী বিক্ষোভে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিহত ১, আহত অনেক এমপি মোকতাদিরের অনুদানপ্রাপ্ত বৃদ্ধার সাক্ষাৎকার ও ধর্মানুভূতি বাংলা‌দে‌শে ৯ লাখ মুসলমান খ্রিস্টান হ‌য়ে‌ছে: খ্রিস্টান ফাদার মুফতি নুরুল্লার ছেলে বেলায়েতুল্লাহ নুর আর নেই ওয়াজ-মাহ‌ফিলগুলো এখন মেলায় প‌রিণত: মুফতী জামালুদ্দীন ঘূর্ণিঝড় আম্ফান: এখনো পানিবন্দি ৩৬ হাজার মানুষ ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে রিক্সা-ভ্যান শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলন: ৬ ডিসেম্বর অবস্থান কর্মসূচী নেশার রাজ্য বাংলাদেশ: আক্রান্ত যুবসমাজ ডাক্তার নেই: সরাইল উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে স্বাস্থ্যসেবা বন্ধ

ঘূর্ণিঝড় আম্ফান: এখনো পানিবন্দি ৩৬ হাজার মানুষ

জাকারিয়া জাকির

বাঁধ ভাঙ্গার কারণে প্রতি জোয়ার ভাটায় নদীর লবণাক্ত পানি ঢুকে পড়ে ইউনিয়নের নয়টি ওয়ার্ডে। তাই এখানে আর চাষাবাদ করা যাচ্ছে না। ফসল এমনকি দূর্বাঘাস নেই এতে। গবাদিপশু খাবার সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে, নিজের চোখে না দেখলে যা বিশ্বাস করার মতো নয়।

বিশেষ প্রতিবেদন: ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড হয়ে যাওয়া সাতক্ষীরার প্রতাপনগর ইউনিয়ন অধিবাসীদের দুঃখ-দুর্দশা আজও শেষ হয়নি। একেতো ঘূর্ণিঝড় লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে তাদের ঘরবাড়ি, ফসল, জমিজমা- সবই। তার চেয়েও বড় দুর্দশা ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী অবস্থা। কারণ সর্বনাশা আম্ফানের আঘাতে ভেঙে যায় ইউনিয়নের দুই পাশের বেরিবাঁধ। একদিকে কপোতাক্ষ নদ, অন্যদিকে খোলপেটুয়া নদী পরিবেষ্টিত এই ইউনিয়নের মানুষের গোলা ভরা ধান ছিল, গোয়াল ভরা গরু-বাছুর কৃষি ছিল এদের প্রধান জীবিকা।

আজ এই আম্ফান শেষ করে দিয়েছে তাদের জীবনের স্বপ্নগুলো। ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের আঘাতে ভেঙ্গে যাওয়ায দুটি বাঁধ তাদের জীবনের সব সুখ কেড়ে নিয়েছে। বাঁধ ভাঙ্গার কারণে প্রতি জোয়ার ভাটায় নদীর লবণাক্ত পানি ঢুকে পড়ে ইউনিয়নের নয়টি ওয়ার্ডে। তাই এখানে আর চাষাবাদ করা যাচ্ছে না। ফসল এমনকি দূর্বাঘাস নেই এতে। গবাদিপশু খাবার সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে, নিজের চোখে না দেখলে যা বিশ্বাস করার মতো নয়।

কি করুণ অবস্থায় আছে এই পানিবন্দি মানুষগুলো। গাছগাছালি সবকিছু পানিবদ্ধতার কারণে মারা যাচ্ছে। রাস্তাঘাট ভেঙে চুরমার। উপজেলার সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র সেতুটি বানের পানি ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। এমতাবস্থায় ইউএনডিপি ও জাপান সরকারের সহায়তায় কিছু সাহায্য সহযোগিতা এসেছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই নগণ্য।

আমাদের সরকার ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী কিছু সাহায্য সহযোগিতা করলেও বর্তমানে সরকারি কোনো অনুদান তারা পাচ্ছেন না। এদিকে দুটি বাঁধ পুনর্ণির্মাণ করা না গেলে অচিরেই এই জনপদ বিলীন হয়ে যাবে। নেই কোনো কর্মসংস্থান। মানুষ কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। আর কিছু মানুষ গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র চলে যাচ্ছে।

রাস্তাঘাট, অন্যান্য যোগাযোগব্যবস্থা, হাট-বাজার সবকিছুরই নাজুক অবস্থা। প্রতাপনগর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জাকির হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশ্বাস দিয়েছেন, অচিরেই এই দুটি বাঁধ নির্মাণ করে এলাকাবাসী র দুঃখ-দুর্দশা দূর করার ব্যবস্থা করা হবে। এ ব্যাপারে আমরা এ এলাকার চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ও দুজন স্থানীয় সাধারণ মানুষের সংক্ষিপ্ত ভিডিও সাক্ষাৎকার গ্রহণ করলাম।

প্রতিবেদক: জাকারিয়া জাকির

সহ-সম্পাদক, দেশ দর্শন

ক্যাটাগরি: প্রধান খবর,  ভিডিও নিউজ,  শীর্ষ তিন

ট্যাগ:

  • 46
    Shares

Leave a Reply