বৃহস্পতিবার রাত ১০:২২, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৮শে মে, ২০২০ ইং
প্রতিবেদন
কপিপেস্ট সাংবাদিকতা বিষয়ে কথাগুলো আমারই: দুর্গাপুর প্রেসক্লাব সভাপতি দেশ দর্শনে “সম্পাদকের লাইভ” নামে সাপ্তাহিক আলোচনা (ভিডিও) সরাইল সদরের মৃৎ শিল্পীদের দুর্দিন রাজধানীর ব্যাংকগুলো করোনার অভয়াশ্রম দুর্গাপুরে চলছে কপিপেস্ট সাংবাদিকতা: ক্ষুব্ধ সচেতন মহল করোনাকে বাংলাদেশের ঈদের দাওয়াত ‘সেলফি দানবীরদের’ বিরিয়ানি বিতরণ! ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়ও দৈহিক দূরত্বের কোনো বালাই নেই! একজন রিকশাওয়ালার আর্তনাদ: মুখে ভাষা নেই করোনারোধে আগের তুলনায় মানুষ বেশি ধর্মমুখী হচ্ছে মসজিদ খুলে দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ‘আলেমদের’ ধন্যবাদ জানানোর হিড়িক তিতাস নদী কচুরিপানায় ভরপুর: ভোগান্তিতে কৃষক ও এলাকাবাসী

নারীবাদের আতুড়ঘরে নারী নির্যাতন আশঙ্কাজনক

জুনায়েদ আহমেদ

বাংলাদেশি নারীবাদীরা বহু বছর ধরেই এসব রাষ্ট্রকে ‘রোল মডেল’ মেনে সমঅধিকার আদায়ের জন্য আন্দোলন করে যাচ্ছে। তাদের দাবি, সেসব রাষ্ট্রে নারীদেরকে সমঅধিকার দেয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাস বর্তমান বিশ্বের কথিত সুপার পাওয়ার রাষ্ট্রগুলোকে নাকানিচুবানী খাইয়ে পর্যুদস্ত করেছে। এসব রাষ্ট্রের অর্থনীতি, পর্যটন, যোগাযোগ, চিকিৎসাব্যবস্থা একেবারে ভেঙ্গে পড়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে হাজার হাজার মানুষ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে। এর থাবা থেকে বাদ যাচ্ছে না বাংলাদেশের মত ‘মধ্য উন্নয়নশীল’ দেশগুলোও।

এই ভঙ্কর পরিস্থিতির মধ্যেই কথিত ‘নারাীবাদীদের আতুড়ঘর’ খ্যাত আমেরিকা, ব্রিটেন, জার্মান, অস্ট্রেলিয়ার মত ‘অতি উন্নত’ রাষ্ট্রগুলোতে আশঙ্কজনক হারে বাড়ছে নারী ও শিশু নির্যাতন। যা সামাল দিতে সেসব দেশের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোর ঘাম ঝরাতে হচ্ছে। এ নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘসহ বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন।

তারা বলছে, করোনা সংক্রমণ রোধে এসব রাষ্ট্রে বর্তমানে লকডাউন চলছে। প্রয়োজন ছাড়া বাহিরে বের হওয়া নিষেধ। তাই পুরুষরা ঘরেই থাকছে। দীর্ঘ সময় পুরুষরা বাসায় থাকায় তাদের চাহিদা মেটাতে নারীদেরকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। আর কোনোকিছু পুরুষদের মনঃপুত না হলেই তাদেরকে সহ্য করতে হচ্ছে অকথ্য গালাগাল ও নির্ম নির্যাতন।

এদিকে বাংলাদেশি নারীবাদীরা বহু বছর ধরেই এসব রাষ্ট্রকে ‘রোল মডেল’ মেনে সমঅধিকার আদায়ের জন্য আন্দোলন করে যাচ্ছে। তাদের দাবি, সেসব রাষ্ট্রে নারীদেরকে সমঅধিকার দেয়া হয়েছে। নারীরা সেখানে যখন-তখন যেখানে ইচ্ছা, সেখানেই যেতে পারেন, যার তার সাথে শোতে পারেন। ছোট পোশাক-বিকিনি পরে বা না পরেও চলতে পারেন, যা দেখে কেউ কিছু বলে না। উল্টো সেক্সি, সুপার ইত্যাদি বলে বাহবা দেয়! আবার চাইলে কাপড়-চোপড়ের মত সঙ্গীও পাল্টানো যায় এবং পাল্টায়ও।

নারীদেরকে এতো এতো ‘স্বাধীনতা’ দেয়া দেশসমূহে নারী নির্যাতন ব্যাপকহারে বাড়ছে কেন- সঙ্গত কারণেই তা নিয়ে জোরালো প্রশ্ন উঠেছে। প্রশ্ন উঠেছে অতি ‘সভ্য’ দেশগুলোতে নারী নির্যাতন কি কোনো নতুন ঘটনা, না পুরোনো? অবশ্য বাংলাদেশের সচেতন মহল (নারী-পুরুষ) অনেক আগে থেকেই বলে আসছেন, কথিত স্বাধীনতার আড়ালে এসব রাষ্ট্রেই নারীরা সবচেয়ে বেশি নিপীড়িত, নিগৃহীত হচ্ছে। সেখানকার নারীদেরকে উদ্দীপক কাপড় খোলা-পরা, সঙ্গী পাল্টানোর মত কিছু সস্তা অধিকার দিয়ে ‘ভোগ্যপণ্য’ হিসেবেই ব্যবহার করা হচ্ছে বলে মনে করেন তারা।

অন্যদিকে সম্প্রতি এই করোনা রোধে সরকার কর্তৃক জারি করা অবরুদ্ধ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশেও বাড়ছে নারী নির্যাতন,ধর্ষণ, ধর্ষণের পর হত্যার মত ন্যক্কারজনক ঘটনা। যা গণমাধ্যম ও সামাজিক মাধ্যমে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করছে। এমন দুঃসময়েও যারা এসব ঘটাচ্ছেন, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছেন সবাই।

জুনায়েদ আহমেদ : স্টাফ রিপোর্টার

শীর্ষ তিন,  সারাদেশ

  • 19
    Shares

Leave a Reply