রবিবার রাত ১১:৪৯, ৯ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ২৪শে অক্টোবর, ২০২১ ইং

বিজ্ঞাপনপ্র‌শ্নে বাংলাদেশে সব বিদেশি চ্যানেল সম্প্রচার বন্ধ

‌দেশ দর্শন ডেস্ক

বাংলাদেশে বিজ্ঞাপনসহ অনুষ্ঠান প্রচার করে- এমন সব বিদেশি চ্যানেলের সম্প্রচার বাংলাদেশে বন্ধ করে দিয়েছে কেবল অপারেটররা।

এর ফলে বিবিসি, সিএনএনসহ আন্তর্জাতিক নিউজ চ্যানেল এবং ভারতীয় চ্যানেলসহ সব বিদেশি চ্যানেলের সম্প্রচার বাংলাদেশে বন্ধ রয়েছে।

শুক্রবার থেকে বিজ্ঞাপনসহ বিদেশি চ্যানেল বাংলাদেশে সম্প্রচার করা যাবে না – বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছিল এসব চ্যানেলের দেশীয় পরিবেশকদের।

শুক্রবার থেকে বিজ্ঞাপনসহ বিদেশি চ্যানেল বাংলাদেশে সম্প্রচার করা যাবে না – বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছিল এসব চ্যানেলের দেশীয় পরিবেশকদের।

এই নির্দেশের পটভূমিতে ঢাকার দু’টি কেবল অপারেটরের কার্যালয়ে মোবাইল কোর্ট শুক্রবারই অভিযান চালিয়েছে।

কেবল অপারেটররা কী বলছে?

কেবল অপারেটরদের এসোসিয়েশনের নেতা আনোয়ার পারভেজ বিবিসিকে বলেছেন, দেশীয় পরিবেশকরা বিদেশি চ্যানেলগুলোকে বিজ্ঞাপন ছাড়া অনুষ্ঠান দেয়ার ব্যাপারে আলোচনা করেছিল। কিন্তু বিদেশি চ্যানেলগুলো তাতে রাজি হয়নি।

তিনি আরও জানান, দেশীয় পরিবেশক এবং কেবল অপারেটরদের বিদেশি চ্যানেলের অনুষ্ঠান থেকে ক্লিন ফিড করা বা বিজ্ঞাপন বাদ দেয়ার ব্যবস্থা নাই। সে কারণে সরকারের নির্দেশ পালন করতে গিয়ে তারা সব বিদেশি চ্যানেলের অনুষ্ঠান সম্প্রচার দেশে বন্ধ রেখেছেন।

আনোয়ার পারভেজের বক্তব্য হচ্ছে, পরিবেশক এবং কেবল অপারেটরদের বিদেশি চ্যানেল থেকে বিজ্ঞাপন বাদ দেয়ার ব্যবস্থা যে নাই – সেটা তারা তথ্য মন্ত্রণালয়কে জানিয়ে দিয়েছেন।

দেশীয় টেলিভিশন চ্যানেলগুলো দীর্ঘদিন ধরে বিজ্ঞাপনসহ বিদেশি চ্যানেলে অনুষ্ঠান প্রচারের বিরোধিতা করে আসছে।

তথ্যমন্ত্রীর বক্তব্য কী?

বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বিবিসিকে বলেছেন, বাংলাদেশের আইনে রয়েছে বিদেশি বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবে না। ভারত, পাকিস্তান, ব্রিটেনসহ বহু দেশে এই আইন রয়েছেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

কোন বিদেশি চ্যানেল বন্ধ করা সরকারের অভিপ্রায় নয় বলে উল্লেখ করে ড. মাহমুদ জানান, বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন দেখানোর কারণে কয়েক হাজার কোটি টাকা বিদেশি চ্যানেলের কাছে যাচ্ছে।

আইন ভঙ্গ করে বিদেশি চ্যানেলে যদি বিজ্ঞাপন না দেখানো হতো তাহলে দেশের মিডিয়াই লাভবান হতো।

এখন আইন মেনে বিদেশি চ্যানেলের সম্প্রচার করতে হলে পরিবশেক এবং চ্যানেলের কর্তৃপক্ষেই বিকল্প পথ খুঁজে বের করতে হবে, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন, এক্ষেত্রে সরকারের কিছু করার নেই।

কেবল অপারেটর এসোসিয়েশনের হিসেব অনুযায়ী, বাংলাদেশে বর্তমানে ১০০টিরও বেশি চ্যানেল রয়েছে যার দর্শক সংখ্যা প্রায় দেড় কোটি।

সূত্র: বি‌বি‌সি বাংলা

ক্যাটাগরি: প্রধান খবর,  শীর্ষ তিন

ট্যাগ:

Leave a Reply