রবিবার রাত ১১:৪৪, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ২৮শে নভেম্বর, ২০২১ ইং

মানুষের কোন শক্তি কোরআনের মূল ধারক? -জাকির মাহদিন

মানুষের রচিত নয় বরং স্রষ্টাপ্রদত্ত এবং সর্বশ্রেষ্ঠ গ্রন্থ আল-কোরআনকে মানুষের মূলত কোন্ শক্তিটি ধারণ করেছে- এ নিয়ে জাকির মাহদিন এর অনুসন্ধানী ও পর্যবেক্ষণমূলক একটি বক্তব্য। তিনি বলেন, কোরআনের সবটুকু সবার পড়া অপরিহার্য নয়। তা অনুবাদসহ হোক, আর অনুবাদ ছাড়াই হোক। কারণ কোরআনের ভার নেয়ার সামর্থ্য বলতে গেলে তেমন কারোই নেই, একমাত্র সর্বশেষ নবী ও রাসুল ছাড়া। তবে সবার সম্মিলিত একটা প্রচেষ্টা অবশ্যই থাকতে হবে, কোরআনকে পুরোপুরি বুঝার ও মানার। অন্যদিকে কিছু কিছু ব্যক্তি অবশ্যই পারিপার্শ্বিক শর্ত পূরণের পাশাপাশি সম্পূর্ণ কোরআন অনুবাদসহ বারবার পড়তে হবে। যদিও খুব কম আয়াতই তার অনুভূতিতে তোলপাড় সৃষ্টি করবে।

তাছাড়া নবীর পর সাহাবাগণ ছাড়া অন্যকোনো ব্যক্তির পক্ষে কোরআনের খুব বেশি বাক্য (আয়াত) বা শব্দের গভীর অনুভূতি ধারণের সামর্থ্যও নেই। কারণ এর ওজন অনেক বেশি। কারো জীবনে মাত্র দুয়েকটি শব্দ বা দুয়েকটি আয়াত অনুভূতিতে নাড়া দিলেই তার জীবন অন্য সবার চেয়ে ব্যতিক্রম হয়ে যায়। তিনি সবার থেকে এমনভাবে আলাদা হয়ে যান, সূর্য যেমন চন্দ্রের চেয়ে আলাদা।

 

বিস্তারিত জানতে ভিডিও বক্তব্যটি শুনুন…

এক্ষেত্রে সবার ক্ষেত্রে মূল করণীয় বিষয়টি হচ্ছে, কোরআনের বিশেষ বিশেষ শব্দ, আয়াত ও ছোট কয়েকটি সূরা অনুবাদসহ জেনে নেয়া এবং তার গভীরে পৌঁছা। আর তেমনই একটা অতি গুরুত্বপূর্ণ শব্দ হচ্ছে ‘ক্বালব’ (হৃদয়)। তার এ মূল বক্তব্যটি সেই ক্বালব নিয়েই।

ক্যাটাগরি: ইসলাম,  প্রধান কলাম

ট্যাগ:

Leave a Reply