শনিবার রাত ২:০৭, ২৭শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং
প্রতিবেদন
সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন মারা গেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা মারা গেলেন কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর চীনকে সামলাতে গোয়া খুলে দিয়েছে ভারত ঠাকুরগাঁওয়ের টাঙ্গনে নির্বিচারে চলছে মা মাছ নিধন (ভিডিও) নেত্র‌কোনার দুর্গাপুরে ট্রাফিক পুলিশ বক্সে কেউ নেই প্রতিবাদ ও বিপ্লবের পূর্বশর্ত নিয়ে জ্বালাময়ী বক্তব্য ক‌রোনাকা‌লেও গ্রা‌মে চল‌ছে পি‌ঠা বানা‌নোর ধুম! তথাকথিত ত্রাণ বিতরণ নিয়ে কড়া হুঁশিয়ারি আওয়ামীলী‌গে করোনার তৃতীয় আঘাত: মারা গেলেন সিলেটের মেয়র কামরান ক‌রোনার ভয়াল থাবায় বাংলা‌দে‌শের সব‌চে‌য়ে ক্ষমতাধর ব্য‌ক্তির মৃত্যু সরাইলের পরমানন্দপুর-বরইচারা গ্রামের বেহাল রাস্তা: জনদুর্ভোগ চরমে

হেফাজত ও কওমিশিক্ষা নিয়ে বিস্ফোরক বক্তব্য

বিশেষ প্রতিবেদক

নাস্তিক ব্লগাররা শাহবাগের অতিগুরুত্বপূর্ণ মোড়টি অবরোধ করে জামায়াতের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে পুরো ইসলামের বিরুদ্ধেই জনগণকে ক্ষেপিয়ে তোলে। এতে সাধারণ জগণের পাশাপাশি কওমি মাদরাসাওয়ালারাও ক্ষেপে যায়। অন্যদিকে জামায়াতে ইসলামিও এ সুযোগটা কাজে লাগায়।

২০১০ সালের পর হেফাজতে ইসলাম প্রথম আলোচনায় আসে নারী অধিকার নিয়ে তথাকথিত নারীবাদীদের কর্মকাণ্ড, বিতর্কিত নারীনীতি ও সরকারের অবস্থানের বিরোধিতা করে। এরপর বাংলাদেশের একটি বিশেষ রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে হেফাজতে ইসলাম আরো মুখ্য হয়ে ওঠে। অথচ এটি চট্টগ্রামের একটি আঞ্চলিক ধর্মীয় সংগঠন। এর প্রধান হিসেবে চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদরাসার পরিচালক আহমদ শফী এবং জুনায়েদ বাবুনগরীও তখন ধর্মীয় বিভিন্ন বক্তব্য দিয়ে তুমুলভাবে আলোচনায় আসেন। কারণ তখন বাংলাদেশে নাস্তিক্যবাদী ব্লগারদের উত্থান, জামায়াতে ইসলামির কেন্দ্রীয় নেতাদের আটক এবং একে একে সাজা ও ফাঁসির রায়কে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি দিন দিন আরো ঘোলাটে হচ্ছিল কিংবা বিশেষ কিছু দল ও গোষ্ঠী ঘোলাটে করছিল।

যা অনেকেই জানে না কিংবা বুঝতে পারে না, তা হচ্ছে, হেফাজতে ইসলামের হঠকারিতা, সঠিক নেতৃত্বহীনতা এবং লাগামহীন বক্তব্য। একদিকে ধীরে ধীরে হেফাজত তলিয়ে যেতে থাকে সুবিধাবাদী ও ধর্মীয় মুখোশধারী ব্যক্তিদের অজ্ঞতা ও স্বার্থের অন্ধকারে, অন্যদিকে এতে ফুটে ওঠে মাদরাসা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের শিক্ষাব্যবস্থায় দীর্ঘদিনের বাস্তব ঘাটতি। পরিবেশ-পরিস্থিতি কিংবা সংগঠন ও নেতৃত্বের বাস্তব জ্ঞান ও প্রশিক্ষণ না থাকায় ইসলামন্থীরাই একে কেন্দ্র করে দিন দিন সংগঠিত না হয়ে বরং বিভক্ত হতে থাকে।

এরই ধারাবাহিকতায় একপর্যায়ে নাস্তিক ব্লগাররা শাহবাগের অতিগুরুত্বপূর্ণ মোড়টি অবরোধ করে জামায়াতের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে পুরো ইসলামের বিরুদ্ধেই জনগণকে ক্ষেপিয়ে তোলে। এতে সাধারণ জগণের পাশাপাশি কওমি মাদরাসাওয়ালারাও ক্ষেপে যায়। অন্যদিকে জামায়াতে ইসলামিও এ সুযোগটা কাজে লাগায়। ফলে শাপলা চত্বরে জমতে থাকে বিকল্প আন্দোলন।

যা অনেকেই জানে না কিংবা বুঝতে পারে না, তা হচ্ছে, হেফাজতে ইসলামের হঠকারিতা, সঠিক নেতৃত্বহীনতা এবং লাগামহীন বক্তব্য। একদিকে ধীরে ধীরে হেফাজত তলিয়ে যেতে থাকে সুবিধাবাদী ও ধর্মীয় মুখোশধারী ব্যক্তিদের অজ্ঞতা ও স্বার্থের অন্ধকারে, অন্যদিকে এতে ফুটে ওঠে মাদরাসা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের শিক্ষাব্যবস্থায় দীর্ঘদিনের বাস্তব ঘাটতি। পরিবেশ-পরিস্থিতি কিংবা সংগঠন ও নেতৃত্বের বাস্তব জ্ঞান ও প্রশিক্ষণ না থাকায় ইসলামন্থীরাই একে কেন্দ্র করে দিন দিন সংগঠিত না হয়ে বরং বিভক্ত হতে থাকে।

আর এসব নিয়েই দেশ দর্শন সম্পাদক জাকির মাহদিন এর আজকের আলোচনা। এতে তিনি মাদরাসা শিক্ষার মূল সমস্যা, হেফাজতের সাথে জনগণের সম্পর্ক, হেফাজত নেতাদের দাম্ভিক আচরণ ইত্যাদি বিষয়গুলো নিয়ে পর্যালোচনা করেছেন।

 

ধর্ম-দর্শন-বিজ্ঞান,  প্রধান খবর,  ভিডিও নিউজ,  শীর্ষ তিন

Leave a Reply