শনিবার সকাল ৯:২৩, ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ৮ই মে, ২০২১ ইং
প্রতিবেদন
দুই শর্তে কওমিদের সঙ্গে সমঝোতা হতে পারে: মোকতাদির চৌধুরী এম‌পি করোনায় সমগ্র ভারত এখন শ্মশানে পরিণত কোণঠাসা হেফাজত: আলোচনায় সমাধান চায় ক‌রোনায় ১৭ জন সাংস‌দের মৃত্যু: দ্বিতীয় ঢেউয়ে আ‌রো শতাধিক আক্রান্ত পুরো ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর এখন ডাস্টবিন হরতালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সরকারী গণগ্রন্থাগার ধ্বংস (ভিডিও) মোদীবিরোধী বিক্ষোভে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিহত ১, আহত অনেক এমপি মোকতাদিরের অনুদানপ্রাপ্ত বৃদ্ধার সাক্ষাৎকার ও ধর্মানুভূতি বাংলা‌দে‌শে ৯ লাখ মুসলমান খ্রিস্টান হ‌য়ে‌ছে: খ্রিস্টান ফাদার মুফতি নুরুল্লার ছেলে বেলায়েতুল্লাহ নুর আর নেই ওয়াজ-মাহ‌ফিলগুলো এখন মেলায় প‌রিণত: মুফতী জামালুদ্দীন ঘূর্ণিঝড় আম্ফান: এখনো পানিবন্দি ৩৬ হাজার মানুষ

হেফাজত কি গরিবের বউ!

জুনা‌য়েদ আহ‌মেদ

হেফাজত শান্তিপূর্ণ হরতাল পালন করছে কেনো? বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলছে বর্তমানের প্রায় সমস্ত গণমাধ্যম ও বুদ্ধিজীবীগণ।

কেউ কাপড় ধরে টান দেয়, কেউ দেয় ওড়না। তবুও কিচ্ছুটি বলতে পারে না। কারণ সে গরিবের বউ। অসহায়। বর্তমানে হেফাজতের অবস্থাটাও অনেকটা এমন। মিডিয়া এবং সরকারের আচরণ দেখে এ ধারণাই হয়। হেফাজতকে নিয়ে সরকার, মিডিয়া, বামপন্থী, নাস্তিক, মোদিপ্রেমী লীগ সবাই টানাটানি করে। খেলা করতে চায়। কিন্তু হেফাজত তেমন কিছু করতে পারে না, দক্ষ কর্মী এবং শক্তিশালী মিডিয়া না থাকায়। তবে তারা চেষ্টা ক‌রে যা‌চ্ছে।

সেদিন হেফাজতের হরতাল চলছিল, শান্তিপূর্ণভাবে। হরতাল মানেই জ্বালাও পোড়াও; যেমনটি আওয়ামী-বিএনপি-জামাত বা অন‌্যান‌্য দল করে। তো হেফাজত শান্তিপূর্ণ হরতাল পালন করছে কেনো? বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলছে বর্তমানের প্রায় সমস্ত গণমাধ্যম ও বুদ্ধিজীবীগণ। এসবই এখন সরকারপন্থী। তারা সে হরতালকে বলেছে উত্তাপহীন, ঢিলেঢালা। আবার হেফাজত যদি উত্তাপ ছড়ায়, তারা বলে সন্ত্রাসী। তাহলে হেফাযত যাবে কোনদিকে!

হেফাযতের দক্ষ কর্মী, মিডিয়ার অভাব থাকলেও মরে যাওয়ার লোকের কমতি নেই। যা অন‌্যকোনো দল কিংবা সংগঠনের নেই। তারা নানান সুবিধা দিয়েও এমন মরণপণ কর্মী পায় না।

সরকার যখন তখন গুলি করে বুক ঝাঁঝড়া করে। আর মিডিয়া যা-তা শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। সেদিনের হরতালে ঢাকায় একটি মিছিলে একজন হেফাজতকর্মীকে বাংলাদেশের পতাকা হাতে মিছিল করতে দেখা যায়। একজন কর্মী ‘পতাকা হাতে কেনো মিছিল করেছে’ তা নিয়ে তারা সংবাদ শিনোনাম করেছে! তারা বুঝাতে চাচ্ছে, হেফাজতের হাতে বাংলাদেশের পতাকা মানানসই না। তারা আরো বুঝাতে চায়, পতাকাটা তাদের বাপ-দাদার একক সম্পত্তি। এটাতে অন‌্যকারো কোনো অধিকার নেই। এবার বুঝেন, সরকারি মিডিয়া হেফাজত নিয়ে কেমন পুতুল খেলা খেলতে চায়!

আরো পড়ুন> আনুশকা-দিহান: বন্ধুহীন সম্পর্ক অসম্ভব!

তবে এটা সত‌্য, হেফাযতের দক্ষ কর্মী, মিডিয়ার অভাব থাকলেও মরে যাওয়ার লোকের কমতি নেই। যা অন‌্যকোনো দল কিংবা সংগঠনের নেই। তারা নানান সুবিধা দিয়েও এমন মরণপণ কর্মী পায় না। হেফাযতের সেটা আছে কিন্তু ঠিকঠাক কাজে লাগাতে পারছে না।

জুনা‌য়েদ আহ‌মেদ: সংবাদকর্মী কলাম লেখক

দেশ দর্শনের স্টাফ রিপোর্টার

 

 

 

ক্যাটাগরি: মিনি কলাম

ট্যাগ: জুনায়েদ আহমেদ

Leave a Reply