শনিবার রাত ১:৪৯, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ. ৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
Advertisement
সর্বশেষ খবর:
শেষ হল ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভাষা সাহিত্য সাংবাদিকতা কোর্স মুফতি মুবারকুল্লাহকে আদ-দাঈর `লেখক সম্মাননা স্মারক` প্রদান মহামন্দার শঙ্কায় বিশ্বঅর্থনী‌তি: অচলায়ত‌নে বাংলা‌দেশ মুহুরীনির্ভর আদালত ন‍্যায়বিচারের প্রতিবন্ধক আমি কেন অনলাইনে শিক্ষা ও জ্ঞান বিতরণের বিরোধী: জাকির মাহদিন ‌তিতাস ট্রেনের দুর্নী‌তি-অব্যবস্থাপনা চর‌মে: যাত্রীভোগা‌ন্তি সীমাহীন বিএমএসএফ`র উ‌দ্যোগে ঢাকায় `জার্নালিস্ট শেল্টার হোম`: সব সাংবাদিকের জন্য উন্মুক্ত মুখের ভাষা বাংলা, অস্তিত্বের ভাষা নয়: জাকির মাহদিন ভারত‌কে ব‌লে‌ছি শেখ হাসিনাকে টিকিয়ে রাখতে যা যা করা দরকার সবই করুন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী অপ‌টিমাম আই‌টি‌ ব্রাহ্মণবা‌ড়িয়ায় শুরু হচ্ছে ফ্রিল্যা‌ন্সিং মাস্টার কোর্স শুক্রবার ঢাকায় আদ-দাঈর কো‌র্সে জা‌কির মাহ‌দি‌নের ক্লাস: সবার জন্য উন্মুক্ত কেন্দুয়া-নেত্রকোনা আ’লীগ নেতাকর্মী‌দের দ‌লে দ‌লে বিএনপিতে যোগদান

শিখো-শিখাও পদ্ধতিতে নতুন মডেলের স্কুল

নিজস্ব প্রতিবেদক

শিক্ষাক্ষেত্রে স্বল্পতম খরচে শিক্ষার সর্বাধিক বিস্তার ঘটানো এবং ঘরে ঘরে স্বউদ্যোগে শিশুদের প্রয়োজনীয় শিক্ষা নিশ্চিত করতে “একটি বাড়ি একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান” রূপকল্প গ্রহণের কোনো বিকল্প নেই।

শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যাপক দুর্নীতি, অনিয়ম ও শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা করার লাগাম টেনে ধরতে “একটি বাড়ি একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান” রূপকল্প নিয়ে ‘শিখো-শিখাও’ পদ্ধতিতে নতুন মডেলের শিক্ষাব্যবস্থা ও স্কুল প্রস্তাব করছেন সমাজগবেষক, সাংবাদিক ও কলামিস্ট জাকির মাহদিন।

তিনি বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে ‘শিখো-শিখাও’ পদ্ধতিটা সর্বাধিক কার্যকর, অর্থসাশ্রয়ী, সর্বনিম্ন সময় ও শ্রমসাপেক্ষ। এটাকে উচ্চশিক্ষার পাঠ্যপুস্তকের ভাষায় ‘সতীর্থ শিখন’ পদ্ধতি বলে। তবে শিক্ষকদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ, দক্ষতা ও আন্তরিকতার অভাবে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এ পদ্ধতির উপস্থিতি নেই।

তিনি বলেন, বর্তমান বিশ্বে ও বাংলাদেশে করোনাকালীন এ সময়টিতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অর্থব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। আবার দূর-দূরান্তের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে নিয়মিত উপস্থিতিও অনিশ্চিত এবং ঝুঁকিপূর্ণ। পৃথিবী কবে কখন স্বাভাবিক হবে এর কোনো ঠিক নেই। তাই শিক্ষাক্ষেত্রে স্বল্পতম খরচে শিক্ষার সর্বাধিক বিস্তার ঘটানো এবং ঘরে ঘরে স্ব-উদ্যোগে শিশুদের প্রয়োজনীয় শিক্ষা নিশ্চিত করতে “একটি বাড়ি একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান” রূপকল্প গ্রহণের কোনো বিকল্প নেই।

তিনি জানান, ২০০৩ সাল থেকে বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তিনি এ পদ্ধতি সফলভাবে প্রয়োগ করেছেন এবং ভালো ফলাফলও পেয়েছেন। তারপর এ পদ্ধতির আরো উন্নয়ন ও দক্ষতা বিকাশের জন্য তিনি এখনো পর্যন্ত এ পদ্ধতিটি নিয়ে পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষা নিরীক্ষা অব্যাহত রেখেছেন। এরই মধ্যে এ পদ্ধতিতে সারাদেশে নতুন মডেলের অনেকগুলো স্কুল প্রতিষ্ঠার লক্ষে দেশ দর্শন ইন্সটিটিউট নামে একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন।

তিনি আরো বলেন, এর জন্য প্রথম শর্ত- শিক্ষকদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ, পরিবর্তনকামিতা, আন্তরিকতা ও উদ্যোক্তা হওয়ার মানসিকতা। এগুলো থাকলে তেমন পুঁজি ও অবকাঠামোর দরকার নেই। যার যা আছে তাই নিয়ে শুরু করতে পারে। তবে তার আগে পূর্বপ্রস্তুতিমূলক শিক্ষার সংজ্ঞা, উদ্দেশ্য ও মৌলিক দর্শনগুলো উপলব্ধি করার অনুরোধ করেন। এসব নিয়ে তিনি গত তিন বছর আগে ইউটিউবে একটি ভিডিও আপলোড দিয়েছেন। সবাইকে এটি শোনার অনুরোধ জানান।

ক্যাটাগরি: ধর্ম-দর্শন-বিজ্ঞান,  প্রধান খবর,  ভিডিও নিউজ,  শীর্ষ তিন,  সম্পাদকের কলাম,  সারাদেশ

ট্যাগ:

Leave a Reply