মঙ্গলবার সকাল ৭:৩০, ২১শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ. ৫ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
Advertisement

দেশ দর্শন ‘মুক্ত সাংবাদিকতা’র নতুন নিয়ম

২০১ বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

থিঙ্কট্যাঙ্ক নিউজ পোর্টাল দেশ দর্শনে বারবার কিছু সমস্যার অন্যতম একটা কারণ, সম্ভবত এর “মুক্ত সাংবাদিকতা” বা “নাগরিক সাংবাদিকতা” বিভাগটি। যেটাকে ইংরেজিতে বলে “সিটিজেন জার্নালিজম”। এর আরো কিছু সুন্দর ও গ্রহণযোগ্য নামকরণ রয়েছে। তো এটাকে আমরা আরেকটা নাম দিয়েছি। প্রাথমিকভাবে যারা এ বিভাগে কাজ করবেন, তাদের আমরা বলবো “শিক্ষানবিশ সাংবাদিক”।

তো কথা হচ্ছে, পত্রিকার সামগ্রিক উন্নয়নের স্বার্থে এ বিভাগে এখন আর ফ্রি আইডি খোলা হবে না। ন্যূনতম এক হাজার টাকা করে আইডিপ্রতি নেয়া হবে। আর যাদের আইডি খুলে দেয়া হবে, তারা যে কারো ব্যক্তিগত, পারিবারিক কিংবা সামাজিক নিউজ দিতে পারবেন এবং সেগুলো আমরা যত্নসহ এডিট করব এবং ছবিতে দেশ দর্শনের লোগো সংযুক্ত করব। এগুলো যেহেতু কষ্টকর ও সময়সাপেক্ষ কাজ, তাই এই কাজগুলো লোক দিয়ে করাতে হবে এবং এ বিভাগটাও আরো উন্নত করতে হবে। তাই একহাজার টাকা করে ন্যূনতম পাঁচজন পাওয়া গেলে মুক্ত সাংবাদিকতা বিভাগটি চালিয়ে রাখা হবে। নইলে এ বিভাগটা বন্ধ করে দিতে হবে।

আর যারা টাকা দিয়ে আইডি খুলবেন, তারাও অন্যদের নিউজ করার ক্ষেত্রে যতটুকু সম্ভব একটা পারিশ্রমিক নেবেন। যদি কেউ নিজের ও নিজেদের নিউজ নিজেরাই তৈরি করে দেয়, সেক্ষেত্রে টাকা না-ও নিতে পারেন। কিন্তু যেসব নিউজ আপনি লিখবেন, সেসবের ন্যূনতমেএকটা খরচ নিতেই পারেন।

অনেকেই আছেন যারা সমাজে প্রচুর ভালো কাজ করছেন। আর্থিকভাবে তারা লাভবানও হচ্ছেন। তাদের কাজ নিয়ে দেশ দর্শনে প্রতিবেদন লিখুন, প্রচার করুন এবং খরচ নিন। যাদের আর্থিক সামর্থ্য ভালো, তাদের থেকে খরচ নিয়ে আমরা চূড়ান্তভাবে কিছু ভালো মানুষদের নিউজ প্রচার করব, যাদের থেকে পয়সা নেব না।

যারা টাকা দিয়ে আইডি খুলবেন, শুধু তাদের নিয়ে প্রতি সপ্তাহে বা পনেরো দিনে একবার জুম মিটিং হবে। সাহিত্য, সাংবাদিকতা, কলাম ইত্যাদি নিয়ে নিয়মিত অনলাইন কর্মশালা হবে। জ্ঞানগর্ভ আলোচনা হবে। এই জুম মিটিংটাই হবে লেখালেখি ও সাংবাদিকতার বুনিয়াদি বিষয় নিয়ে। এরপর প্রশিক্ষণ নিয়ে কেউ চাইলে অন্যপত্রিকায়ও চলে যেতে পারবেন।

কথায় আছে, দশের লাঠি, একের বোঝা। আমরা কয়েকজন মিলেমিশে চাইলে একটা ভালো নিউজ সাইট এগিয়ে নিতে পারি। কিন্তু একজনের জন্য এটা খুবই কঠিন। প্রথম পর্যায়ে যারা আইডি চাইবেন, টাকার সমস্যা থাকলে প্রথমে পাঁচশত টাকা দেবেন। তারপর এক বা দুমাস আপনি আমাদের সার্ভিস দেখে বাকি পাঁচশত টাকা দেবেন। কারণ আপনার নিউজ ও লেখাগুলো সম্পাদনা করতে আমাদের যথেষ্ট পরিশ্রম ও সময় ব্যয় হয়। আর এখানে আপনিও নিজের ব্যক্তিগত সম্পর্কের মানুষদের লেখা ও নিউজ দিতে পারবেন। এবং তাদের থেকে আপনিও প্রয়োজনমতো পারিশ্রমিক নিতে পারবেন। এতে আপনার লেখার প্রতিও দায়িত্বশীলতা এবং মনোযোগ তৈরি হবে। তবে পাইকারিভাবে সবার কাছ থেকে টাকা নেয়ার প্রয়োজন নেই।

আমাদের যেসব প্রতিনিধি ও শিক্ষানবিশ সাংবাদিকের আইডি সক্রিয় থাকবে, ভালো কাজ করবে, লাভবান হবে, তাদের লেখাগুলো যেহেতু আমরা নিয়মিতই সম্পাদনা করব, তাই তারা প্রতি ছয়মাস অন্তর অন্তর পাঁচশত টাকা করে দেবেন। অর্থাৎ আইডিপ্রতি বাৎসরিক একহাজার টাকা। আর যারা সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও এতটুকু খরচ দিতে অনাগ্রহী, তারা হয়তো নিজেদের সাংবাদিকতারও উন্নয়ন ঘটাতে পারবে না, আমাদেরও না। তবে এ কথা সবার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য না-ও হতে পারে। কিন্তু এটা আমাদের একটা নীতি। আর অন্যান্য বিভাগ যথারীতি আগের নিয়মেই চলবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: এ বিষয়ে পরবর্তীতে আরো বিস্তারিত বলা হবে। এরমধ্যে কারো কোনো পরামর্শ, মতামত, দৃষ্টিভঙ্গি থাকলে পত্রিকার ফোনে বা মেইলে জানানোর অনুরোধ রইল। আর আগে (২০২২ সালের আগ পর্যন্ত) যারা দেশ দর্শনের নাগরিক সাংবাদিকতা ও অন্যান্য বিভাগে লিখেছেন, সেসব লেখা আমাদের সাইটে সংরক্ষিত আছে।

বিনীত- সম্পাদক

দেশ দর্শন

Some text

ক্যাটাগরি: Uncategorized

Leave a Reply

আমার কর্মস্থল আমার ভালোবাসা

আমার ভাবনা: সম‌য়ের অপচয় রোধ

বই পড়তে বেড়াতে বের হোন

আমরা কি বাংলা ভাষায় শুদ্ধ…

মা‌হে রামজান ও আমা‌দের করণীয়

ইমরান খান: ক্রি‌কেট মঞ্চ থে‌কে…

২০ মে ড. মির শাহ…