মঙ্গলবার দুপুর ১:৩৪, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ. ২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ খবর:
২৮ ফেব্রুয়ারি মাতৃভাষা একাডেমিতে ‘মাতৃভাষা উৎসব’ ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বোর্ড নির্বাচন অনুষ্ঠিত নির্বাচনী পোস্টারে লেমিনেশন ও পলিথিন ব্যবহাররোধে স্মারকলিপি ক্ষমতার স্বপ্নে বিভোর জাতীয় পার্টি: চুন্নু মাতৃভাষা একাডেমিতে কবিতা আড্ডা অনুষ্ঠিত হোমিওপ্যাথিক হেলথ এন্ড মেডিকেল সোসাইটি ব্রাহ্মণবা‌ড়িয়া সম্মেলন অনু‌ষ্ঠিত ব্রাহ্মণবা‌ড়িয়ার বিখ্যাত বাইশমৌজা বাজার ও গরুর হাট ব্রাহ্মণবা‌ড়িয়ায় তরুণ আলেমদের ২য় মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত তরুণ আলেমদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ইসলাম তরবা‌রির জো‌রে প্রতি‌ষ্ঠিত হয়‌নি: আলেমদের সঙ্গে মোকতা‌দির চৌধুরী ফাহমিদা প্রজেক্ট আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মোকতাদির চৌধুরী এমপি ফাহমিদা প্রজেক্ট: অব‌হে‌লিত নারী‌দের কর্মসংস্থানে বিনামূল্যে সেলাই প্রশিক্ষণ

শিক্ষক: মনুষ্যত্বের বিকাশে দিকনির্দেশক

রুহুল আমীন আকবার

শিক্ষক মানে মানুষ গড়ার কারিগর। শিক্ষক মানে মানুষের ভেতরে সুপ্ত থাকা প্রতিভা খুঁজে বের করে এর বিকাশ সাধক। শিক্ষক মানে মনুষ্যত্বের শক্তিগুলো প্রস্ফুটিত করার দিকনির্দেশক। শিক্ষক মানে মানুষকে পাশবিক আচরণ থেকে মানবিক আচরণে রূপান্তরকারী। শিক্ষক মানে মানুষের হৃদয় জয়কারী। শিক্ষকতা মানে মানবতার সঠিক চর্চা করে আল্লাহর জমিনে আল্লাহর মনোনীত ধর্ম প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে মানব বসবাস উপযোগী পৃথিবী গড়ে তোলা। শিক্ষকের কাজ হলো আরামকে বিসর্জন দেয়া। শিক্ষকের মানসিকতা হলো অর্থের লোভ না থাকা। শিক্ষক মানে বিলাসিতা ত্যাগ করা। শিক্ষক মানে মিথ্যা প্রশংসা না করা।

মিথ্যা প্রশংসা মানে পৃথিবীতে প্রশংসা চাওয়ার মত কোন যোগ্যতা কোন সৃষ্টির নেই। যদি কেউ প্রশংসা চায় তাহলে সেটা তার অজ্ঞতার কারণে চাইতে পারে। কিন্তু কোন বিজ্ঞজন বা জ্ঞানীজন গভীর দৃষ্টি দিয়ে দর্শন করলে দেখবে সে কোন প্রশংসার মালিক নয় বরং সমস্ত ভাল কাজের প্রসংসার মালিক আল্লাহতালা। যে মানুষ তার ইচ্ছা বলে বা জ্ঞানের বলে বা পিতা-মাতার বলে বা বিশ্ব শক্তির বলে পৃথিবীতে আসেনি। সে মানুষের কাজ, বুদ্ধি, পদমর্যাদা তার কিভাবে হয়। যদি কোন মানুষ এখানে নিজেকে কাজের স্রষ্টা দাবি করে তাহলে সে বোকার রাজ্যে বাস করে। আর কোন শিক্ষক বোকা হয়ে আরেকজনকে জ্ঞান দান করতে পারবে না। শিক্ষকের মর্যাদা হলো সবার উপরে। শিক্ষক জাতির গুরু। শিক্ষক জাতির রাহবার। শিক্ষক রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের উত্তরসূরী। শিক্ষক আল্লাহতালার প্রতিনিধি।

তুমি শ্রেষ্ঠ, তুমি অন্য, তুমি ভিন্ন, তুমি অনন্য। তোমার জ্ঞানের মাধ্যম কুরআন-সুন্নাহ। তোমার জ্ঞানের উৎস স স্বয়ং আল্লাহতা‘লা। তোমার পথপ্রদর্শকও স্বয়ং আল্লাহতা‘লা। তোমার যা প্রয়োজন তার কাছ থেকে চেয়ে নাও। থেমে যেয়ো না। ভেঙ্গে পড়ো না। তোমার পথের যা প্রয়োজন তিনি সব পাথেয় দেওয়ার ওয়াদাবদ্ধ। তোমার কিসের পিছুটান। তুমি দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাও। তোমাকে দমাবার কেউ নেই। যাদেরকে তোমার শত্রু মনে হচ্ছে তাদের কারও শক্তি আল্লাহর চেয়ে বেশি নয়। বরং তারা সবায় আল্লাহর সৃষ্টি। আমাদেরকে বেশি ভয় দেখায় দরিদ্রতা, খাদ্যের অভাব, ভাল পোষাকের অভাব, ভাল বাসস্থানের অভাব। এগুলোাকে ভয় পেলে আমাদের চলবে না। এগুলো আল্লাহর গোলাম, আল্লাাহ যা বলবে তাই সে শুনে।

তুমি আল্লাহর সাথে ভাব কর, সম্পর্ক কর, খাতির কর, ঘনিষ্ঠতা আরো বাড়িয়ে দাও। এরচেয়েও দামি জিনিস আল্লাহ তোমাকে দিবে। যা আল্লাহ অন্য কোন ধনীকেও দেননি। হে আল্লাহ, আমরা তোমার দয়ার কাঙ্গাল, তোমার ভালবাসার কাঙ্গাল, তোমার অনুগ্রহের কাঙ্গাল। দয়া করে আমাদেরকে তোমার প্রিয় বান্দা হিসেবে কবুল কর। আমাদেরকে সর্বোচ্চ ধৈর্য দান কর। আমীন। আমাদের দায়িত্ব যথার্থভাবে আদায় করার তাওফিক দান কর। আমীন।

মাওলানা রুহুল আমীন আকবার

শিক্ষক, লেখক, গবেষক

ক্যাটাগরি: ইসলাম,  মিনি কলাম,  শীর্ষ তিন

ট্যাগ:

Leave a Reply